বাহুবলে স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে অমানবিক নির্যাতন; অবশেষে পুলিশে উদ্ধার

সিলেট বিডি নিউজ নেট
প্রকাশিত ৭, জুন, ২০২১, সোমবার
বাহুবলে স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে অমানবিক নির্যাতন; অবশেষে পুলিশে উদ্ধার

জুবায়ের আহমেদ,বাহুবল প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের বাহুবলে এক দিনমজুরের মেয়েকে অমানবিক নির্যাতন করেছে স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন, ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সদর ইউনিয়নের রামপুর টিলাবাড়ী গ্রামে।

জানা যায়, বাহুবল উপজেলার ৩নং সাতকাপন ইউনিয়নের মুড়াগাঁও গ্রামের দিনমজুর পাকু মিয়া তার মেয়ে তানিয়া আক্তার(২১)কে গত রমজানের ৪ দিন পূর্বে বিয়ে দেন বাহুবল সদর ইউনিয়নের রামপুর টিলাবাড়ীর আবুল শহিদ মিয়ার ছেলে আশিক মিয়ার সাথে,এসময় উভয় পক্ষের মুরুব্বিয়ানদের সম্মতিতে হুজুর দিয়ে বিয়ে পড়ানো হয়। এসময় উভয় পক্ষের ময়মুরুব্বিদের উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিক বিয়ের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু হুজুর দিয়ে বিয়ে পড়ানোর কিছুদিন যেতে না যেতেই তাড়াহুড়ো করে মা,বাবার অসুস্থতার কথা বলে আনুষ্ঠানিক বিয়ে ছাড়াই তানিয়াকে নিয়ে আসে স্বামী আশিক মিয়া ও তার পরিবারের লোকজন। কে জানে কার ভিতরে কি দিনমজুর পাকু মিয়া অন্ধবিশ্বাসে মেয়ে তানিয়া আক্তারকে তোলে দেন শ্বশুরবাড়ির লোকজনের হাতে,তানিয়াকে সুকৌশলে স্বামীর বাড়ি এনেই তার উপর চালানো হয় অমানবিক নিষ্ঠুর নির্যাতন,গত রবিবার ৬ জুন দুপুরে তানিয়া আক্তারকে হঠাত সামান্য বিষয় নিয়ে অমানবিক নির্যাতন ও মারধোর শুরু করে স্বামী আশিক মিয়া,চাচা শ্বশুর সালাম মিয়া ও তাদের পরিবারের সদস্যরা,এসময় তারা তানিয়াকে ঘাড়ধাক্কা দিয়ে প্রতিবেশী কদর আলীর বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়।পরবর্তীতে প্রতিবেশী কদর আলী ওরফে কনর আলীকে বিভিন্নভাবে হুমকি দামকি দেয়া শুরু করে আশিক মিয়া ও তাদের পরিবারের লোকজন, এ ঘটনার খবর পেয়ে দিনমজুর পাকু মিয়া বাহুবল মডেল থানায় মেয়েকে উদ্ধারের জন্য একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে, বাহুবল মডেল থানার এস আই ইদ্রিস আলী সোমবার বিকেলে একদল পুলিশ নিয়ে রামপুর গ্রামে গিয়ে তানিয়া আক্তারকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। পরে আহত তানিয়াকে তার বাবার জিম্মায় বাহুবল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা করানো হয়।বর্তমানে তানিয়ার অবস্থা খুব খারাপ বলে জানিয়েছেন তানিয়ার বাবা ও পরিবারের লোকজন।

 621 total views

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন
error: Content is protected !!