জগন্নাথপুরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা, ঘাতক চাচা পলাতক

সিলেট বিডি নিউজ নেট
প্রকাশিত ৯, জুন, ২০২১, বুধবার
জগন্নাথপুরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা, ঘাতক চাচা পলাতক

রাহেনা নিসা,জগন্নাথপুর প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুরের সৈয়দপুর গোয়ালগাঁও গ্রামে এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ বুধবার বিকেলে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নের সৈয়দপুর গোয়ালগাঁও গ্রামের শয়ফুল ইসলামের মেয়ে সানজিদা বেগম (১৬) মঙ্গলবার রাতে প্রতিদিনের ন্যায় রাতের খাওয়া-দাওয়া শেষে নিজ শয়নকক্ষে ঘুমাতে যায়। রাতের কোনো একসময় মেয়েটির আপনচাচা রবিউল ইসলাম (৪০) সানজিদার ঘরে প্রবেশ করে শ্বাসরূদ্ধ করে হত্যা করে পালিয়ে যায়। ভোরে মেয়েটির নিতরদেহ নিজঘরের বিছানায় পড়ে থাকতে দেখেন পরিবারের লোকজন।

পরিবারের লোকজন জানান, শয়ফুল ইসলামের চার ভাইয়ের মধ্যে এক ভাই যুক্তরাজ্যে বসবাস করেন। ওই প্রবাসী নিঃসন্তান হওয়ায় মেয়েটিকে তিনি নিজের মেয়ের মতো মায়া করে সংসারের ভরণ-পোষণের টাকা মেয়েটির কাছে পাঠাতেন। এ নিয়ে ঘাতক ভাইয়ের সাথে কিছু বিরোধ চলছিল। কিছু দিন আগে এসব নিয়ে বিরোধের জের ধরে স্ত্রী সন্তান নিয়ে তিনি শ্বশুর বাড়ি চলে যান। মঙ্গলবার বাড়ি ফিরে এ ঘটনা ঘটান মেয়েটির আপনচাচা রবিউল ইসলাম।

নিহত মাদ্রাসা ছাত্রীর বড়ভাই হাম্মদ আহমদ বলেন, আমাদের ধারনা চাচাই আমার বোনকে হত্যা করে পালিয়েছেন। তার বোন সৈয়দপুর মহিলা টাইটেল মাদসার ৮ম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

নিহত মাদ্রাসা ছাত্রীর মা সৈয়দা ছালেহা বেগম কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ঘাতক আমার মেয়েকে বালিশচাপা দিয়ে হত্যা করেছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শকারী জগন্নাথপুর থানার ওসি (তদন্ত) মোছলেহ উদ্দিন বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে পাঠিয়েছি।

 136 total views

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন
error: Content is protected !!