বিশ্বনাথে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সবজি-ফসলের ক্ষতির আশঙ্কা

সিলেট বিডি নিউজ.নেট
প্রকাশিত ৮, ডিসেম্বর, ২০২১, বুধবার

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি : সিলেটের বিশ্বনাথে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবে উপজেলায় টানা দু’দিন ধরে বৃষ্টি হচ্ছে।

কখনও গুঁড়ি গুঁড়ি আবার কখনও নামছে ভারী বৃষ্টিও। ঝড়ো হাওয়ার সাথে বেড়েছে শীতের তীব্রতা। এতে ব্যাহত হচ্ছে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা।

বিপাকে পড়েছেন শ্রমজীবি মানুষ। বৃষ্টির কারণে আমন ধান কাটা ব্যাহত ও শীতকালীন সবজি ক্ষেত নষ্ট হওয়ার দুশ্চিন্তা বেড়েছে কৃষককূলে।

সরেজমিন উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, বৃষ্টি ও ঝড়ো হাওয়ার কারণে হাট-বাজার ও অফিস পাড়ায়, তেমন একটা আনাগোনা নেই মানুষের। বৈরী আবওহাওয়ায় রাস্তায় কমেছে যানবাহনের সংখ্যা।

আমন ধান তোলার ভরা মৌসুম হলেও বৃষ্টি-বাতাসের কারণে ফসলের মাঠেও নেই কৃষকের ব্যস্ত ছুটাছুটি। বেশির ভাগ আমন ক্ষেতের ধান এখনও কাটার বাকি।

অবশিষ্ট ধান হেলে পড়েছে দমকা হাওয়ায়। কোন কোন ক্ষেতে জমেছে বৃষ্টির পানি। ধান শুকানোর মাঠে পড়ে আছে পলিথিন ঢাকা ধানের স্তুপ।

অন্যদিকে, শীতকালীন মৌসুমি শাক-সবজি ক্ষেত ঘুরে দেখা গেছে, বৃষ্টির কারণে অনেকের সবজি ক্ষেতের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। পানি জমে নষ্ট হয়েছে ফল-ফসল। পচে গেছে বীজ।

শ্রমজীবী আবদুর রহিম বলেন, বৃষ্টির কারণে কাজের মৌসুমেও দু’দিন থেকে বেকার। কাজ-কর্ম না থাকায় চেয়ে-চিত্তে চলতে হচ্ছে আমাদের।

কৃষক এমদাদুল হক জানান, এখনও অর্ধেক জমির ধান কাটতে পারিনি। যেগুলো কাটা হয়েছে, বৃষ্টির জন্যে সেগুলো ঘরে তুলতে পারছি না। ঝড়ো হাওয়ায় ক্ষেতের ধান নুয়ে পড়ায়, এবার মেশিনে (কম্বাইনহারভেস্টার) কাটা যাবেনা। শ্রমিক দিয়েই কাটতে হবে ধান।

সবজি চাষী কাওছার আহমদ বলেন, বৃষ্টিতে নষ্ট হয়েছে আমার পুরো সবজি ক্ষেত। মরেছে চারা গাছ। পচন ধরেছে বীজে। এবার আর লাভের আশা নেই। লোকসানই গুণতে হবে।

এ ব্যাপারে কথা হলে উপজলো কৃষি কর্মকর্তা কনক চন্দ্র রায় বলেন, ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের পূর্বাভাস পেয়েই কৃষকদের সর্তক করা হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে দেয়া হচ্ছে বিষেশ নির্দেশনা। তেমন কোন ক্ষতির আশঙ্কা নেই। ক্ষয়ক্ষতি হলে, তা নিরুপণ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান।

 54 total views

শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন
error: Content is protected !!